শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ১১:১১ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
শিরোনাম:
গাজীপুরে নারী সাংবাদিকের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন রাজবাড়ীতে বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত ৫ নয়া দিল্লি রাষ্ট্রীয় সফরে পৌছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মনিরামপুরে ছেলের আঘাতে মা হাসপাতালে অতপর থানায় অভিযোগ বিষধর রাসেল ভাইপার এখন ২৮ জেলায় একমাত্র আওয়ামীলীগই স্বাধীনতার স্ব-পক্ষের দল মেহের আফরোজ চুমকি এমপি রাজগঞ্জের ঝাঁপায় ঈদ পুণর্মিলনী অনুষ্ঠান ও বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত  সিলেট ও সুনামগঞ্জের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের উদ্ধারে সেনাবাহিনীর দায়িত্বপ্রাপ্ত মোবাইল নং ১৪তম মালয়েশিয়া গিফটস ফেয়ার এ বাংলাদেশ-এর অংশগ্রহণে উপচে পড়া ভিড় স্টলে  শ্রীনগরে সাংবাদিকের উপর আঃলীগ নেতার হামলার প্রতিবাদে এলাকাবাসীর মানববন্ধন কালিগঞ্জে শেখ হাসিনার আদর্শের সৈনিক হিসেবে দেশের তরে কাজ করবো মেহের আফরোজ চুমকি এমপি শ্রীপুরের প্রয়াত শিক্ষক কাজী ফয়জুর রহমানের স্মরণে শোকসভা ইলেকশন মনিটরিং ফোরামের চেয়ারম্যান যুক্তরাজ্য ও তুরস্ক সফর যশোরে লোকসানে চামড়া বিক্রি করে ফিরে আসছেন ব্যবসায়ীরা পানিতে তলিয়ে আছে সুনামগঞ্জের অনেক এলাকা যশোরে প্লাস্টিক কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ড শ্রীনগরে পূর্ব শত্রুতার জেরে সাংবাদিকের উপর নৃশংস হামলা থানায় অভিযোগ  সিরাজগঞ্জ তাড়াশে মাংস ভাগাভাগি নিয়ে সংঘর্ষে নারীসহ আহত ১০ মোটরসাইকেলের ধাক্কায় চালক ও বৃদ্ধা নিহত ঝিকরগাছায় মধ্যবিত্তদের মাঝে শাড়ি-লুঙ্গি বিতরণে ঈদ সুপার সপ কুরবানি কর মনের পশু টুংটাং শব্দে শেষ মুহূর্তে ব্যস্ত সময় পার করছেন কর্মকারেরা  ঈদে সড়কে ঘরমুখী মানুষের চাপ  গাজীপুরে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ সলঙ্গায় অজ্ঞাত ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরহী  এক যুবক নিহত খাগড়াছড়িতে শতাধিক ঔষধি ও ফলজ সহ বৃক্ষরোপণ করেন পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার) ঘূর্ণিঝড়ের রেমালে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটার পক্ষ থেকে নগদ অর্থ প্রদান বিআরটিএ অফিসের শত দালালের মাঝে একজন পরিশ্রমি ভালো মানুষ মো: কামরুজ্জামান সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সম্মুখে মানববন্ধন কর্মসূচি উপজেলা বাসীকে পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম শালু নড়াইলে মাছের ঘেরে গোসল করতে গিয়ে কিশোরের মৃত্যু

সংস্কার ও কুসংস্কারের বলয়ে আবদ্ধ হয়েই ঐতিহাসিক দরগাহ মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে

উপজেলা / জেলা-প্রতিনিধি / ১১ বার পড়া হয়েছে
সময় শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ১১:১১ অপরাহ্ন

সংস্কার ও কুসংস্কারের বলয়ে আবদ্ধ হয়েই ঐতিহাসিক দরগাহ মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে
 ডেস্ক রিপোর্টঃ 
সংস্কার ও কুসংস্কারের বলয়ে আবদ্ধ রয়েই যেন হাজার বছর অতিক্রম করছে বাঙালি জাতিসত্তার মানুষ,কালের পরিক্রমায় মানুষের মানসে লালিত পালিত নানান লোকজ কৃষ্টি, আর বিশ্বাসের মাধ্যমে এদেশের যেন সংস্কৃতি নতুনত্ব পায়।মানুষ হারিয়ে যায় হাজার বছর আগের কোনো মিথের কাছে যেখানে কিছু নিয়ম নীতির চর্চায় ফুটিয়ে তোলা হয় তাদের সংস্কৃতির। বাংলার সহজ সরল মানুষের চোখে সব সময় অলৌকিক শক্তির প্রতি বিশ্বাস,ভক্তি ও ভালোবাসার কমতি দেখতে পাবেন না।
নানান ধরণের রীতি রেওয়াজকে নিয়েই চলছে এদেশের মানুষের সহজ সরল জীবনাচার।
কথায় যেমন, আছে বিশ্বাসে মিলায় বস্তু,তর্কে বহুদূর। তেমনি মানুষের সরল মনে এই বিশ্বাসটাই প্রবল, মানুষ বিশ্বাসের মাধ্যমে খণ্ডাতে চায় তার নিয়তির লেখাকে,তাই মানুষ ছুটে চলে তার বিশ্বাসের স্থানের সন্ধানে।যখন মানুষ তার মানসের চিন্তিত স্থানের খোঁজ পায় তখন ভক্তি সহকারে মিশে যেতে চায় তার লক্ষ্যের পাণে।নিজেকে উৎসর্গ করে দিয়ে হলেও মানুষ তার বিশ্বাসের স্থানের সাথে নিজের অস্তিত্ব মিলিয়ে ফেলতে দ্বিধাবোধ করে না।লাল সালু উপন্যাসের মজিদের চরিত্রের উপস্থাপন না হলেও মানুষের বিশ্বাস তাকে বাধ্য করে নানা ধরণের নিয়ম নীতির আবদ্ধতায় চলতে আর বিশ্বাসের স্থান তৈরি করতে নতুন প্রজন্মের মানুষের মধ্যে।
আজ তেমনি সংস্কার ও বিশ্বাসের গল্প শুনাবো-
একবিংশ শতাব্দীর মানুষের মনে জেগে উঠা বিশ্বাসের ইতিহাস, নানান রীতিনীতি কিংবা পরিবর্তনের ইতিহাসের মেলবন্ধনের নাম ‘দর্গা মেলা”।
ময়মনসিংহ জেলার মুক্তাগাছা উপজেলার শুক পাটুলী গ্রামের এক সুপ্রাচীন মাটির ঢিবির উপরে অবস্থিত এক দরগাহকে কেন্দ্র করে আবর্তিত হয় এ অঞ্চলের সহজ সরল মানুষের বিশ্বাস ও নানান রীতি নীতি।
আনুমানিক ৩০০ বছরের আগের এক অলিয়ে কেরামের আগমনের মাধ্যমে এ স্থানটি জনসাধারণের নিকট পরিচিত লাভ করে,কথিত আছে এই স্থানটি জুড়ে এক সময় বসবাস করত জিন,পরীরা তাদের নিকট হতেই অলির স্থান লাভ ও আশেপাশের মানুষের মাঝে ধর্মীয় রীতিনীতির প্রচার করতেন।তাদের ইলম শিক্ষা দিতেন।আধ্যাত্মিক সাধকের নাম শাহ কালু দেওয়ান।দরগাহ’র খাদেমের সাথে কথা বলেও উনার আগমন স্থান ও পিতা মাতার নাম জানা সম্ভব হয়নি।তার মৃত্যুর পরেই তার ভক্ত,অনুসারীরা নিজেদের মনের আশা,দুঃখ ও পাওয়ার আকুতি নিয়ে দরগাহে নানান জিনিসের মানত করতেন।এই মানত পূরণের জন্য এলাকার মানুষ সেই মাটির উঁচু ঢিবির উপর জড়ো হয়ে নিজেদের মতো রান্নাবান্না করে ফকির ও অন্যান্য মানুষকে ভোজন করিয়ে থাকেন।এই দিনটি বছরের একটা সময়ে অনুষ্ঠিত হয় এই দিনের উপলক্ষে বিশাল বড় মেলার আয়োজন করেন স্থানীয় ও অন্যান্য এলাকার মানুষ।
এবার ২৬৮ তম বৎসরের উদযাপন দেখতে ফেলাম,তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের সূচনা হয় ৩০ এ পৌষ, পহেলা মাঘ ও দুশরা মাঘ।হাজার হাজার মানুষের পদচারণায় মুখরিত ছিলো দরগাহ ও দরগাহস্থ মাঠের পরিবেশ।
দরগাহ আগমন করা ও মানত করা মানুষের বরাতে জানতে পারলাম দরগাহ যে খাবারের আয়োজন চলে সে খাবারে পাশের একটা পুকুরের পানি দিতে হয়,পুকুরের পানি না দিলে নাকি খাবার গুলো পরিপূর্ণতা পায় না।একেবারে পানি না দিলেও চাল কিংবা অন্যান্য উপকরণ হলেও পুকুরের পানি দিয়ে ধুয়ে নিতে হয়।দরগাহের বয়োবৃদ্ধ খাদেমের ভাতিজা ফজলুল হকের বরাতে জানতে পারি দরগাহ কেন্দ্রিক নানান অলৌকিক ঘটনার,তার মধ্যে দরগাহে এসে না বলে কিছু নিয়ে গেলে নাকি তাদের অমঙ্গল হয়, জিন পরীরা নানা ভাবে সমস্যা করে,দরগাহের খেদমতে তাদের দায়িত্বটা বংশ পরম্পরায় চলে আসছে।
মানত করা কতক লোকের বয়ানে জানতে পেরেছি তারা নিজেদের শোক-দুঃখ, অসুস্থতা থেকে সুস্থতা লাভের জন্য মানত করে এবং সুস্থ হয়ে উঠার পর দরগাহে এসে খাবার তেরি করে বিলিয়ে দেয়।
কথিত আছে, মুরগী বা অন্যান্য পশু এখানে এনেই জবেহ করতে হয় অন্য স্থান হতে জবেহ করলে মানত শুদ্ধ হয় না।আরও কথিত আছে যার ভালোর জন্য মানতের রান্না করা হয় সে এ খাবার খেতে পারেনা।খেলে তার মানত শুদ্ধ ভাবে হবে না।
এমন নানান স্থানে, নানান মানুষের বিশ্বাসের মাধ্যমে মানুষের মাঝে চলে আসছে নানা সংস্কারও সংস্কৃতি।
বিশ্বাসের মাধ্যমেই চলছে মানুষের জাগতিক জীবনবোধ।সুন্দরে, বিচিত্র সংস্কৃতি ও সম্প্রীতির বলয়ে আবদ্ধ থেকে চলুক এদেশের মানুষের জীবনাচার এই প্রার্থনা করি।
আহমেদ হানিফঃ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

একাধিক নিউজ
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error: Content is protected !!